f

প্রাথমিক শিক্ষকদের নিজের জেলায় বদলির ঘোষণা শিক্ষামন্ত্রীর। জানুন এখনকরনীয় কী?



11 মার্চ :-রাজ্যের  প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য বিরাট সুখবর শেনাল শিক্ষামন্ত্রী পার্থ বাবু । বাকি শিক্ষকদের মতন এই রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকদের কেও দেওয়া হবে জেলায় বদলির সুযোগ। তাই এবার বাকি উচ্চ প্রাথমিক,মাধ্যমিক,উচ্চমাধ্যমিক স্তরের শিক্ষকদের মতো নিজের জেলায় বদলি হওয়ার সুযোগ পাবেন প্রাথমিক শিক্ষকরা !
কিছু দিন আগেই মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন রাজ্যের সমস্ত শিক্ষকদের নিজের জেলায় বদলি করা হবে। তখন এটা মনে করা হচ্ছিল যে প্রাথমিক শিক্ষকেরাও কি এই সুযোগ পাবেন ?
কিন্তু আজ মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন যে,এখন থেকে নিজের জেলায় বদলির সুযোগ পাবেন প্রাথমিক শিক্ষকরাও ৷ এর ফলে প্রাথমিক শিক্ষকরা নিজের বাড়ির কাছাকাছি স্কুলে পড়াতে পারবেন।

আগামী ১ এপ্রিল থেকেই নিজের জেলায় পোস্টিং পাবেন প্রাথমিক শিক্ষকেরা। আজ বিধানসভায় প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য সুখবর শুনিয়েছেন রাজ্যের মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।এক্ষেত্রে ছাত্র-শিক্ষক অনুপাত ও শূন্যপদ বিবেচনা করেই বিভিন্ন স্কুলে বদলির সুযোগ পাবেন শিক্ষকরা।মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন যে, “যাঁরা বদলির জন্য আবেদন করে ফেলেছে।তাদেরকে  আগে দেখা হবে।

যদিও এর জন্য একটি নির্দিষ্ট রূপরেখার প্রয়োজন বলে মনে করছে অনেক অভিজ্ঞ মহল। কারণ জানা গিয়েছে এই জেলা বদলির জন্য শিক্ষককে কোনও আবেদন জমা করতে হবে না ! সমস্ত শিখকের ডাটা শিক্ষা দপ্তরের কাছে আলরেডি আছে, ফলে শিক্ষাদপ্তর নিজেয় ঠিক করে নিতে পারবে যে কোন শিক্ষক বর্তমানে অন্য জেলায় কর্মরত আছেন এবং এর ভিত্তিতে করা হবে ট্রান্সফার ,বলে জানা গিয়েছে !

********নীচে *****************
পশিমবঙ্গ মিউনিসিপালিটি সার্ভিস কমিশন এর মাধ্যমে ইংরেজি ,হিন্দি ও উর্দু মাধ্যমে প্রাথমিকে শতাধিক শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে পশিমবঙ্গ সরকার।

নিচে বিস্তারিত আলোচনা করা হল 
1. শিক্ষক (ইংরেজি )
শূন্যপদের সংখ্যা: 149 টি
শিক্ষাগত যোগ্যতা: i) পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা কাউন্সিলের অধীনে উচ্চমাধ্যমিক পাস বা এর কমপক্ষে 50% নম্বর এবং প্রাথমিক শিক্ষায় 02 বছরের ডিপ্লোমা জাতীয় শিক্ষক শিক্ষাব্যবস্থার (এনসিটিই) দ্বারা যথাযথভাবে অনুমোদিত।
অথবা
ii) পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা কাউন্সিলের অধীনে উচ্চ মাধ্যমিক পাস বা এর কমপক্ষে 50% নম্বর এবং 04 বছর প্রাথমিক শিক্ষা ব্যাচেলর (বিএল.এড) এর সমতুল্য।
অথবা
iii) পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা কাউন্সিলের অধীনে উচ্চ মাধ্যমিক পাস বা এর সমতুল্য কমপক্ষে 50% নম্বর এবং শিক্ষায় ডিপ্লোমা (বিশেষ শিক্ষা)।
অথবা
iv) স্নাতক এবং প্রাথমিক শিক্ষায় 02 বছর ডিপ্লোমা l
v) একজন প্রার্থীর উচ্চমাধ্যমিক বা এর সমমান বা ইংরেজিতে অনার্স বা ইংরেজিতে এমএ পর্যন্ত সমস্ত ক্ষেত্রেই প্রথম ভাষা হিসাবে ইংরেজি থাকতে হবে।
vi) প্রার্থীকে অবশ্যই শিক্ষকের যোগ্যতা পরীক্ষা (টেট ) পাস্  (রাজ্য / কেন্দ্রীয়) হতে হবে।
দ্রষ্টব্য: সমস্ত প্রার্থীকে অবশ্যই মাধ্যমিক (মাধ্যমিক) পাসের শংসাপত্র বা বিষয় হিসাবে গণিত এবং ইংরেজির সমতুল্য অধ্যয়ন এবং প্রাপ্ত থাকতে হবে।
বয়সসীমা: 01/01/2020 পর্যন্ত সর্বনিম্ন 18 বছর এবং সর্বোচ্চ 40 বছর।


২. শিক্ষক (হিন্দি )
শূন্যপদের সংখ্যা: 19 টি।
শিক্ষাগত যোগ্যতা: i) পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা কাউন্সিলের অধীনে উচ্চমাধ্যমিক পাস বা এর কমপক্ষে 50% নম্বর এবং প্রাথমিক শিক্ষায় 02 বছরের ডিপ্লোমা জাতীয় শিক্ষক শিক্ষাব্যবস্থার (এনসিটিই) দ্বারা যথাযথভাবে অনুমোদিত।
অথবা
ii) পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা কাউন্সিলের অধীনে উচ্চ মাধ্যমিক পাস বা এর কমপক্ষে 50% নম্বর এবং 04 বছর প্রাথমিক শিক্ষা ব্যাচেলর (বিএল.এড) এর সমতুল্য।
অথবা
iii) পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা কাউন্সিলের অধীনে উচ্চ মাধ্যমিক পাস বা এর সমতুল্য কমপক্ষে 50% নম্বর এবং শিক্ষায় ডিপ্লোমা (বিশেষ শিক্ষা)।
অথবা
iv) স্নাতক এবং প্রাথমিক শিক্ষায় 02 বছর ডিপ্লোমা যে নামেই জানা যায়
v) প্রার্থীকে অবশ্যই শিক্ষক যোগ্যতা পরীক্ষা (টিইটি) যোগ্য (রাজ্য / কেন্দ্রীয়) হতে হবে।
দ্রষ্টব্য: - i) প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকের পদে নিয়োগের জন্য প্রার্থী যে উচ্চমাধ্যমিক স্তরের প্রথম বা দ্বিতীয় ভাষা বা সমমানের কোন মাধ্যমের জন্য প্রার্থী নিয়োগ চাইছেন সে জন্য নির্দিষ্ট ভাষায় অধ্যয়ন ও পাস করা উচিত ছিল।
ii) সকল প্রার্থীকে অবশ্যই মাধ্যমিক (মাধ্যমিক) পাসের শংসাপত্র বা বিষয় হিসাবে গণিত ও ইংরেজির সমতুল্য অধ্যয়ন এবং প্রাপ্ত হতে হবে।
বয়সসীমা: 01/01/2020 পর্যন্ত সর্বনিম্ন 18 বছর এবং সর্বোচ্চ 40 বছর।


3. শিক্ষক (উর্দু )
শূন্যপদের সংখ্যা: 33 টি।
শিক্ষাগত যোগ্যতা: i) পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা কাউন্সিলের অধীনে উচ্চমাধ্যমিক পাস বা এর কমপক্ষে 50% নম্বর এবং প্রাথমিক শিক্ষায় 02 বছরের ডিপ্লোমা জাতীয় শিক্ষক শিক্ষাব্যবস্থার (এনসিটিই) দ্বারা যথাযথভাবে অনুমোদিত।
অথবা
ii) পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা কাউন্সিলের অধীনে উচ্চ মাধ্যমিক পাস বা এর কমপক্ষে 50% নম্বর এবং 04 বছর প্রাথমিক শিক্ষা ব্যাচেলর (বিএল.এড) এর সমতুল্য।
অথবা
iii) পশ্চিমবঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা কাউন্সিলের অধীনে উচ্চ মাধ্যমিক পাস বা এর সমতুল্য কমপক্ষে 50% নম্বর এবং শিক্ষায় ডিপ্লোমা (বিশেষ শিক্ষা)।
অথবা
iv) স্নাতক এবং প্রাথমিক শিক্ষায় 02 বছর ডিপ্লোমা যে নামেই জানা যায়
v) প্রার্থীকে অবশ্যই শিক্ষক যোগ্যতা পরীক্ষা (টিইটি) যোগ্য (রাজ্য / কেন্দ্রীয়) হতে হবে।
দ্রষ্টব্য: - i) প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকের পদে নিয়োগের জন্য প্রার্থী যে উচ্চমাধ্যমিক স্তরের প্রথম বা দ্বিতীয় ভাষা বা সমমানের কোন মাধ্যমের জন্য প্রার্থী নিয়োগ চাইছেন সে জন্য নির্দিষ্ট ভাষায় অধ্যয়ন ও পাস করা উচিত ছিল।
ii) সকল প্রার্থীকে অবশ্যই মাধ্যমিক (মাধ্যমিক) পাসের শংসাপত্র বা বিষয় হিসাবে গণিত ও ইংরেজির সমতুল্য অধ্যয়ন এবং প্রাপ্ত হতে হবে।

বয়সসীমা: 01/01/2020 পর্যন্ত সর্বনিম্ন 18 বছর এবং সর্বোচ্চ 40 বছর।
  এসসি / এসটি-এর জন্য 05 বছর এবং পশ্চিমবঙ্গের ওবিসি ক্যাটাগরির জন্য 03 বছর দ্বারা শিথিলযোগ্য। পিডব্লিউডি প্রার্থীদের নিয়োগের জন্য উচ্চ বয়সের সীমা 45 বছর হবে।


শূন্যপদগুলি কলকাতা পৌর কর্পোরেশনের অধীনে।
পুরুষ এবং মহিলা উভয় প্রার্থীই আবেদনের যোগ্য।

প্রার্থীদের বাছাই: নিয়োগের পদ্ধতি এবং সিলেবাস পরবর্তী সময়ে ওয়েবসাইট এ জানানো হবে
এই জাতীয় তথ্য পশ্চিমবঙ্গ পৌর পরিষেবা কমিশনের (ডাব্লুবিএমএসসি) অফিসিয়াল ওয়েবসাইটেও পাওয়া যাবে www.mscwb .org
আবেদন ফি: প্রার্থীদের অবশ্যই 220 টাকা দিতে হবে।  এছাড়াও   এসসি, এসটি এবং পিএইচ প্রার্থীদের জন্য আবেদন 7০ টাকা ফি দিতে হবে। ডেবিট / ক্রেডিট কার্ড বা নেট ব্যাঙ্কিং ব্যবহার করে অনলাইন আবেদন ফরম জমা দেওয়ার সময় অনলাইন মোডের মাধ্যমে ফি প্রদান করা যেতে পারে বা ফি প্রদানের মাধ্যমে চলানের মাধ্যমে ব্যাংকের মাধ্যমে প্রদান করা যেতে পারে।




 অনলাইন আবেদনের শুরু করার তারিখ: 11/03/2020
অনলাইন আবেদনের সমাপ্তির তারিখ: 15/04/2020

নিচে কয়েকটি চাকরির খবর দেওয়া হল



Post a Comment

0 Comments