শীতলকুচিতে পরিকল্পনা করে মারা হয়েছে ,প্রমাণ আছে ,পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হবে : দাবি মমতার

 প্রথম দফা ভোট থেকে উত্তপ্ত বাংলার রাজনীতি তার মধ্যে গত শনিবার শীতলকুচির ঘটনা মারাত্তক রূপ ধারণ করেছে। এই নিয়ে গোটা রাজ্য তুলপাড়। ঐদিন সেনাবাহিনীর হাতে মোট ৫ জনের মৃত্যু হয় তা নিয়ে তৎপর হয়েছে নির্বাচন কমিশন। এদিকে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মাননীয়া মমতা ব্যানার্জী একের পর  আক্রমণ করে চলেছে বিজেপিকে। এদিকে বিজেপির দাবি এটা উস্কানি কারণে ঘটছে। যদিও মমতা এবং তার দল এটা দাবি করেছে যে ,এটা সম্পূর্ণ চক্রান্ত ,বিজেপির হয়ে কাজ করছে সেনা। 




এদিকে আজ এক জনসভা থেকে মমতা বলেন, "যারা যারা গুলি চালিয়েছিল তাদের নাম আমি সিআইএসএফ থেকে বার করে নিয়েছি। তিনি এটাও বলেন আমি কিন্তু এই কেসটায় ছেড়ে কথা বলবো না। এখানে প্রত্যেকটা নাম আছে, পুরো তদন্ত হবে। এখানে পুঙ্খানুপুঙ্খ লেখা রয়েছে কী ঘটনা ঘটেছে। আমাকে অত বোকা ভাবার কোন কারণ নেই।" এই প্রেক্ষিতে আজও জনসভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেছেন যে কোচবিহারের ওই ঘটনা সম্পূর্ণরূপে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের নির্দেশে ঘটিয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। মমতার এও দাবি যে, গোটা বিষয়টি সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিজেও জানেন। এদিন আবার পুলওয়ামা প্রসঙ্গে টেনে মমতা বলেন, ''কাদের মারতে গিয়ে নিজেদের লোককে মেরে চলে এসেছিলেন, জানি না ভেবেছেন? বেশি মুখ খোলাবেন না। আমরা দেশকে ভালবাসি। তাই অনেক কিছু বলি না।''

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য