Ads Area

সকলে ঘরে বসেই প্রতিমাসে 21,000 টাকা পাবেন, এখনই নাম লেখান এই প্রকল্পে -New Pension Scheme

 সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে কর্মরত ব্যক্তিরা অবসর কালে মোটা টাকা পেনশন(pension) পান। কিন্তু দেশে সরকারি চাকুরিজীবী(govt employee) মানুষের সংখ্যা শতাংশের হারে খুব একটা বেশি নয়। তার ওপর ভারতবর্ষ মূলত কৃষি নির্ভরশীল দেশ। দেশে সরকারি চাকরিজীবী মানুষের চাইতে বেসরকারি কিংবা ছোটোখাটো ব্যবসাদার অথবা কৃষিজীবী মানুষের সংখ্যায় বেশি। এই অবস্থায় দেশের বেশির ভাগ মানুষের বৃদ্ধকালীন জীবন কে আর্থিক ভাবে সুরক্ষিত এবং সু নিশিত করতে বেশ কয়েক বছর আগেই পেনশন প্রকল্প চালু করা হয়েছে।



গত ২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বাধীন বিজেপি প্রথম বারে কেন্দ্রের মসনদে পর দেশের প্রান্তিক মানুষের আর্থিক দৈনদশা কাটাতে বেশ কয়েকটি প্রকল্প(prakalpa) হাতে নেয়। এই প্রকল্পগুলির মধ্যে তালিকার  রয়েছে অটল(atal pension yojna) পেনশন যোজনা, সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা, পাবলিক প্রবিডেন্ট ফান্ডের মতো একাধিক জনমুখি প্রকল্প। প্রকল্পগুলি যে বেশ জনকল্যান মূলক সে বিষয়ে সন্দেহের কোনও অবকাশ নেই। 


তবে দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে পিপিএফ(ppf) অ্যাকাউন্টের কথা জানেন না এমন মানুষ বোধ করি খুঁজে পাওয়া যাবেনা।  কারণ পিপিএফ অর্থাৎ পাবলিক(public provident fund) প্রবিডেন্ট ফান্ড মূলত বৃদ্ধ বয়সে আর্থিক ভাবে সুনিশ্চিত ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করেই তৈরি করা হয়েছিল বেশ কয়েক দশক আগে। তারপর অবশ্য কেটে গিয়েছে বেশ কয়েক দশক। বৃদ্ধ কালে আর্থিক ভাবে নিরাপদ এবং স্বাচ্ছন্দে থাকতে দেশের অনেক মানুষই পিপিএফ অর্থাৎ পাবলিক প্রবিডেন্ট ফান্ডের সুবিধা ইতিমধ্যেই গ্রহণ করেছেন। 


পাশাপাশি পিপিএফের ধাঁচে অটল পেনশন যোজনার সুবিধা নিয়েছেন দেশের বেশির ভাগ প্রান্তিক দিন মজুর মানুষ। কিন্তু পাবলিক প্রবিডেন্টের আওতায় এই পেনশন প্রকল্প আসলে কি যা বৃদ্ধ কালীন বয়সে ঘরে বসে আপনি পেতে পারেন ২১০০০ টাকা পেনশনের মতো সুবিধা। 


এ বিষয়ে সরকারি তরফে ঘোষণা করা হয়েছে, এই প্রকল্পের আওতায় ১৮ বছর বয়স থেকে ৪০ বছর বয়স পর্যন্ত কোনও ব্যক্তি যদি তার ৬০ বছর পূর্ণ হওয়া পর্যন্ত প্রতিমাসে নিয়ম করে টাকা জমাতে পারেন তাহলে ওই ব্যক্তির ৬০ বছর পার হওয়ার পর থেকে তিনি প্রতিমাসে নিয়ম করে পেনশন পাবেন। 


এবার দেখে নেওয়া যাক পেনশন প্রকল্পটির যাবতীয় নিয়মবিধি ও তথ্য সম্পর্কে---


1. মূলত ১৮ থেকে ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত কোনও ব্যক্তি যদি প্রতিমাসে ১০০০ টাকা করে জমান তাহলে ৬০ বছর বয়দে ওই ব্যক্তির মোট টাকার পরিমাণ হবে ৫ লক্ষ ৪ হাজার টাকা।  এছাড়া আপনি এতে বার্ষিক ১০ শতাংশ রিটার্ন পাবেন যার কারণে আপনার বিনিয়োগ বেড়ে হবে ১.০৫ কোটি টাকা। এরপর আপনি যদি কর্পাসের ৪০ শতাংশ বার্ষিকীতে রূপান্তর করেন তাহলে সেই মূল্য হবে ৪২.২৮ লাখ টাকা। সেখান থেকে আপনি মাসিক পেনশন ১০ শতাংশ হারে ২১ হাজার ১৪০ টাকা পাবেন। এছাড়া আপনি প্রায়ই ৬৩.৪১ লাখ টাকা একেবারে পেয়ে যাবেন। 



2 . ৬০ বছর পর্যন্ত ওই ব্যক্তিকে প্রতিমাসে নিয়ম করে সরকারের ঘরে টাকা জমাতে হবে। ওই ব্যক্তির ৬০ বছর পর্যন্ত জমাকৃত টাকার ওপর সরকার সুদ সহ ওই ব্যক্তিকে মোট টাকার হিসাবে তার ওপর  প্রতিমাসে পেনশন প্রদান করবে।


4. যদি ওই ব্যক্তি কোনও কারণে মারা যান তাহলে ওই ব্যক্তির নামাঙ্কিত নমিনি কে সরকার সুদ সহ এককালীন সব টাকা ফেরত দিতে বাধ্য থাকিবে। অর্থাৎ নমিনি কে সব টাকা সুদ সহ ফিরিয়ে দেবে সরকার। 


5. প্রকল্পটি  দেশের সব কয়টি পোস্ট অফিস এবং ব্যাঙ্কে উপলব্ধ রয়েছে। অর্থাৎ নিকটবর্তী যেকোনো রাস্ট্রায়ত্ব ব্যাঙ্ক এবং পোস্ট অফিস মারফৎ দেশের যে কোনও ব্যক্তি এই প্রকল্পের সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন। 


6. এই প্রকল্পে জমা হওয়া টাকা কর মুক্ত অর্থাৎ ট্যাক্স (tax free)ফ্রি। 


8. এক্ষেত্রে ওই ব্যক্তিকে যে কোনও পোস্ট অফিস অথবা ব্যাঙ্কের শাখায় নিজের নামে অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। 

চাকরির ভরসা ছেড়ে শুরু করুন এই ব্যবসা গুলি, আয় করুন প্রচুর টাকা: New Business Idea 

তাহলে আর দেরি না করাই ভালো। যদি বৃদ্ধ কালে আপনি আপনার ভবিষ্যৎ জীবনকে আর্থিক ভাবে নিরাপদে রাখতে চান তাহলে এখনই নিকতবর্তী পোস্ট অফিস কিংবা ব্যাঙ্কের শাখায় গিয়ে যোগাযোগ করুন অতি শীঘ্র।   

 

ফেসবুক স্কলারশিপ- বছরে 42 হাজার মার্কিন ডলার , কিভাবে পাবেন , রইল বিস্তারিত- Facebook Scholarship 

written by- Somnath Pal  

চাকরি হোক কিংবা সরকারি প্রকল্প , সঠিক খবর পেতে চোখ রাখুন bongodhara.com -এ 


Join Telegram Channel : Click Here


More News : Click Here

TAG- pension scheme #ppf #govt #prokalpa #pension

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Below Post Ad

taboola